September 22, 2018

ঢাকের বাদ্যে উৎসবের বারতা আজ মহাসপ্তমী

--- ১ অক্টোবর, ২০১৪

কৃষ্ণ দাস ॥ দুর্গাপূজা উপলক্ষে উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে বরিশাল নগরীতে। বিভিন্ন এলাকায় নগরজীবনের কোলাহল ছাপিয়ে শোনা যাচ্ছে ঢাকের বাদ্য। এবছর বরিশাল জেলার ৫৬০টি পূজামন্ডপের মধ্যে বরিশাল মহানগরে ৩৪টি পূজা মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে ৬টি ব্যক্তিগত ও অপরগুলো সাবর্জজনীন।
ষষ্ঠী তিথিতে দুর্গতিনাশিনীর বোধনের মাধ্যমে সূচিত হয় দেবীর আরাধনা। মঙ্গলবার রাত ১২টা ১৯ মিনিট  ১৮ সেকেন্ড পর্যন্ত শ্রী শ্রী দুর্গাষষ্ঠি। সায়ংকালে দেবীর বোধন, আমন্ত্রণ ও অধিবাস। মহাসপ্তমী (১ অক্টোবর বুধবার বুধবার সকাল ১০টা ৪৯ মিনিট ০৩ সেকেন্ড দেবীর নব পত্রিকায় প্রবেশ, স্থাপন সপ্তমাদি কল্পারম্ভ ও বিহিত পুজো। মহাষ্টমী (২ অক্টোবর) বৃহস্পতিবার ৮টা ৫৯ মিনিট ১৯ সেকেন্ড পর্যন্ত মহাষ্টমী কল্পারম্ভ ও বিহিত পুজো। এদিন সন্ধি পুজো আরম্ভ হবে রাত ৫টা ০৬ মিনিট ২৮ সেকেন্ড। মহানবমী (৩ অক্টোবর) শুক্রবার সকাল ৬টা ৫৪ মিনিট ১২ সেকেন্ড দেবীর মহানবমী কল্পারম্ভ ও বিহিত পুজো। বিজয় দশমী (৩ অক্টোবর) শুক্রবার শেষ রাত ৪টা ৩৭ মিনিট ০৪ সেকেন্ডে  দেবীর দশমী বিহিত পুজো সমাপন ও দর্পন বিসর্জন।
বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো শারদীয় শুভেচ্ছা জানিয়ে বিভিন্ন সড়কে নির্মাণ করেছে তোরণ। পূজার পোশাক নিয়ে ফ্যাশন হাউসগুলোও ব্যস্ত। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের নেতারা জানান, কয়েক বছর আগেও এতটা জাঁকজমকের কথা ভাবা যেত না। এ পরিবর্তন এসেছে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সঙ্গে।
জেলা পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ জানান এবার বরিশাল জেলায় মোট ৫৬০টি পূজা মন্ডপপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সবচেয়ে বেশি পূজা মন্ডব আগৈলঝাড়া উপজেলায়। ওই উপজেলায় গতবারের ন্যায় এবারও ১৪১টি, বরিশাল নগরীতে ৪৩টি, উজিরপুরে ১০৫টি, গৌরনদীতে ৭৬টি, বাকেরগঞ্জে ৬৫টি, বানারীপাড়ায় ৪৯টি, মেহেন্দিগঞ্জে ২১টি, সদর উপজেলায় ২০টি, মুলাদীতে ২১টি ও বাবুগঞ্জ উপজেলায় ১৯টি দুর্গা পূজা মন্ডবে শারদীয় দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
প্রশসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন সনাতন ধর্মের সার্বজনীন দুর্গাপূজা নির্বিঘেœ উদযাপন নিশ্চিত করতে পুলিশ পূর্ণ শক্তি ব্যবহার করবে। গতকাল পূজার শুরু থেকে প্রতিমা বিসর্জন পর্যন্ত পুলিশি নিরাপত্তার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। যেসব পূজামণ্ডপে লোক সমাগম বেশি হয়, সেখানে বিশেষ নিরাপত্তা নিশ্চিত, বৃদ্ধ ও শিশুদের প্রতি আলাদা খেয়াল রাখা হবে। এ ছাড়া ট্রাফিক ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয় তদারক করা হবে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা সুচারু করতে সব গোয়েন্দা সংস্থা ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় রক্ষা করছে পুলিশ। র‌্যাব-পুলিশের সদস্যরা সাদা পোশাকেও দায়িত্ব পালন করবে।
দুর্গোৎসবের প্রথম দিনে নগরীর বগুড়া রোড গৌরীয় মঠ, ভাটিখানা সার্বজনীন শ্রী শ্রী দূর্গা ও কালিমাতার মন্দির, ফলপট্টি পূজা মন্দির, অষ্টকোনা লোকনাথ মন্দির, ঝাউতলা, বাজার রোড, সদর রোডের চার্চ ওয়ার্ড, বটতলা, বাকলার মোড় লোকনাথ মন্দির, কাউনিয়া ক্লাবরোড মন্দির, মুখার্জীবাড়ি মন্দির, টিয়াখালী মন্দির, কাউনিয়া ডোমবাড়ি, কাটপট্টি সহ বিভিন্ন মণ্ডপে সন্ধ্যার দিকে দর্শনার্থীদের ভিড় দেখা যায়। প্রতিটি মণ্ডপে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা ছিলেন সতর্ক।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০