November 14, 2018

দস্যুদের যারা মদদ দেয় তারাও রেহাই পাবেনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

--- ২৮ নভেম্বর, ২০১৬

স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আত্মসমর্পন করুন নতুবা মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকুন। কেননা অচিরেই আমরা সুন্দরবনে বনদস্যু ও জলদস্যুদের নির্মূলে অভিযান পরিচালনা করবো। আর অপার সম্ভাবনার এই বনাঞ্চল রক্ষায় আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। কেবল দস্যুরাই নয়, এদের মদদ ও অর্থদাতাদের তালিকা তৈরী করা হচ্ছে। তাদের পরিণতি হবে আরও ভয়াবহ।
সুন্দরবনের জলদস্যু খোকাবাবু বাহিনীর আত্মসমর্পন উপলক্ষ্যে গতকাল সোমবার বেলা সোয়া এগারোটার দিকে নগরীর রূপাতলীস্থ র‌্যাব-৮’র কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমানে শেখ হাসিনার সরকারের অধীনে দেশ অর্থনৈতিকভাবে দারুন ভাবে এগিয়ে চলছে। এই ধারা অব্যাহত রাখতে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসবাদের ন্যায় দস্যুতারও রেহাই দেয়া হবেনা। অপার সম্ভাবনার সুন্দরবনকে দস্যুদের হাত থেকে মুক্ত করতে পুলিশ, কোস্টগাড ও  র‌্যাবকে আরও শক্তিশালী করেছি। তাই যারা এখনো দস্যুতা করে চলছেন তারা আত্মসমর্পণ করুন। নতুবা আমাদের বাহিনী অচিরেই অপারেশন পরিচালনা করলে ভয়ানক পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে। সমাবেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আস্বস্ত করে বলেন, যারা আত্মসমর্পন করেছেন তাদের বিরুদ্ধে হত্যা বা সুর্নিদিষ্ট অভিযোগ না থাকলে তাদের আইনী সহায়তা দিয়ে পুর্নবাসনের ব্যবস্থা করা হবে। কেবল তাই নয়, প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী তাদের জন্য কর্মক্ষেত্র বা বিদেশে পাঠানো যায় কিনা সে ব্যবস্থা নিতে ইতোমধ্যে র‌্যাবের মহাপরিচালকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
সমাবেশের শুরুতে বাহিনীর প্রধান খোকাবাবুসহ ১২ ডাকাত ২২টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র ও এক হাজার তিন রাউন্ড গোলাবারুদ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করেন। বরিশাল র‌্যাব-৮’র অধিনায়ক লে. কর্নেল মোঃ ইফতেখারুল মাবুদের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সাবেক চীফ হুইপ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি, সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট তালুকদার মো: ইউনুচ এমপি, কোস্ট গার্ডের ক্যাপ্টেন মো: আলী চৌধুরী ও বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি শেখ মারুফ হাসান প্রমুখ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল সদর আসনের এমপি জেবুনেচ্ছা আফরোজ, বরিশাল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট খান আলতাফ হোসেন ভুলু  ও সুন্দরবনের বন সংরক্ষক জহির উদ্দিন ।
আত্মসমর্পণ কারীরা হলেন, জলদস্যু বাহিনীর প্রধান মোঃ কবিরুল ইসলাম খোকাবাবু (৩৩), বাহীনির সদস্য আমিনুর ইসলাম (৩২), শাহজাহান গাজী (৩০), আব্দুল আজিজ (৪৪), মিজানুর রহমান (৩৬), রবিউল ইসলাম (২৫), ওসমান গনি (৩৩), রফিকুল গাজী (৩৩), ইয়াছিন আলী গাজী (২৫), মহিদুল ইসলাম (৩৩), মজিবর রহমান (৩৮) ও আবুল কালাম (৩৫)। এরা সবাই সাতক্ষীরা সদর থানার বাসিন্দা।
র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, গত ২৫ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনের শরণখোলা চাঁদপাই রেঞ্জে জলদস্যু ও বনদস্যুদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে র‌্যাব সদস্যরা। অভিযানকালে খোকাবাবু বাহিনী কোনঠাসা হয়ে অভিযানিক দলের কমান্ডারের সাথে যোগাযোগ করে মৌখালী খালের ভিতর গহীন জঙ্গলে তাদের অবস্থান নিশ্চিত করে জানায় তারা বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে আত্মসমর্পন করবেন। তারই ধারাবাহিকতায় জঙ্গলের ভিতরে বসে হাত উচিয়ে তারা আত্মসমর্পন করেন। এসময় খোকাবাবু বাহিনীর কাছে রক্ষিত ছয়টি বিদেশী একনালা বন্দুক, চারটি বিদেশী দোনালা বন্দুক, একটি ২২বোর বিদেশী এয়ার রাইফেল, ছয়টি সাটারগান, দুইটি এয়ারগান, দুইটি ওয়ান সুটারগান এবং একটি বিদেশী কাটা রাইফেলসহ এক হাজার তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।
সূত্রে আরও জানা গেছে, র‌্যাবের অফিযানে গত ৩১ মে সুন্দরবনের মাস্টার বাহিনীর ১০জন জলদস্যুসহ ৫২টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্রসহ চার হাজার ৫শ’ রাউন্ড গোলা বারুদ, ১৪ জুলাই মজনু ও ইলিয়াস বাহিনীর ১১ জলদস্যুসহ ২৫টি দেশী-বিদেশী অস্ত্র ও এক হাজার ২০ রাউন্ড গুলি, ৭ সেপ্টেম্বর আলম ও শান্ত বাহিনীর ১৪ জলদস্যু দেশী-বিদেশী ২০টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ এক হাজার আট রাউন্ড গুলি, গত বছরের ১৯ অক্টোবর ২০টি দেশী-বিদেশী অস্ত্রসহ ৫৯৬ রাউন্ড গুলি জমা দিয়ে র‌্যাবের কাছে আত্মসমর্পন করে ছয়জন জলদস্যু এবং ৪৮জন বনদস্যু বাহিনীর সদস্যরা। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্বার করা হয় ১১৭টি অস্ত্র ও ছয় হাজার ৫২৮ রাউন্ড গুলি

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

নভেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০