November 14, 2018

প্রাথমিক চিকিৎসা

--- ১১ মে, ২০১৩

রেশমা ইয়াসমিন ॥ আঘাতজনিত সমস্যা ঃ ছেলে-বুড়ো থেকে সবাইকেই এ ধরনের সমস্যায় পড়তে হয় হরহামেশা। এখানে কিন্তু আঘাতের মাত্রার ওপর নির্ভর করবে চিকিৎসা। শুধু হালকা ফুলে গেলে কিংবা লালচে আকার ধারণ করলে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে জায়গাটা। আবার পানির বদলে বরফ লাগানো যেতে পারে। আবার জায়গাটা যদি কেটে-ছিঁড়ে যায় এবং কাটা স্থান যদি দৈর্ঘ-প্রস্থ কিংবা গভীরতায় আধা ইঞ্চির বেশি হয়, তাকে অবশ্যই হাসপাতালে নিতে হবে। আর সেখানে ধুলাবালু কিংবা ময়লা না পড়ে সে দিকটায়ও নজর দিতে হবে। আর যতটুকু সম্ভব পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে দিতে হবে জায়গাটা।

উঁচু স্থান থেকে পড়ে গেলে ঃ উঁচু স্থান থেকে পড়ে আঘাত পাওয়া জায়গায় যদি তীব্র ব্যথা থাকে, অনেক বেশি ফুলে যায়, তবে রোগীকে বেশি নাড়াচাড়া করা যাবে না। প্রয়োজনে সেই স্থানের দুই পাশে কাঠের টুকরা বাঁধতে হবে। যাতে কম নড়ে এমন ব্যবস্থা করে রোগীকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে। অতিরিক্ত নাড়াচাড়ায় শরীরের প্রয়োজনীয় টিস্যু, রক্তনালি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

আগুনে পুড়লে ঃ শরীরের কোনো অংশ আগুনে পুড়লে প্রচুর ঠান্ডা পানি ঢালতে হবে। বার্নল ক্রিম লাগানো যেতে পারে পোড়া স্থানে। এত কিছুর পরও যদি ফোসকা পড়ে যায়, কোনো অবস্থাতেই ফোসকা ফাটানো যাবে না। আর শরীরের বড় অংশ পুড়ে গেলে কিংবা ফোসকা ফেটে ক্ষত তৈরি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
পোকামাকড়ের কামড় ঃ পোকার কামড়ের স্থানে পরিষ্কার পানি কিংবা সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে জায়গাটা। যদি সেখানে চুলকায় আর ফুলে ওঠে, বয়স অনুযায়ী হিসটামিন গ্রুপের ওষুধ ক্ষেতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শমতো। আর বেশি ফুলে যাওয়ার সঙ্গে যদি শ্বাসকষ্ট থাকে, তবে অবশ্যই দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে রোগীকে।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

নভেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০