November 20, 2018

বরিশালে জামায়াত-শিবিরের ১৪ জনকে জেলহাজতে প্রেরণ

--- ১১ মে, ২০১৩

বরিশাল টুডে ॥ বরিশাল মহানগর ও জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ জামায়াত-শিবিরের ১৪জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে। জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি মুহাম্মাদ কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনাল মৃত্যুদন্ডের রায়ের প্রতিবাদে দেশব্যাপী সকাল সন্ধা হরতাল আহবান করে জমায়াত। এই হরতালকে সামনে রেখে পুলিশ দেশব্যপী গণগ্রেফতার চালাচ্ছে। এরই অংশ হিসাবে বরিশালে পুলিশ গত তিনদিন ধরে মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারিসহ এপর্যন্ত ১৪ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত সকলকে বিগত হরতালে গাড়ী ভাংচুর ও পুলিশের কাজে বাঁধা দানের অভিযোগ এনে কোর্টে প্রেরন করলে আদালতে তাদের জেল হাজতে পাঠায়।
শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বরিশাল পশ্চিম জেলার গৌরনদী থানা পুলিশ উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির মাওঃ মোস্তাফিজুর রহমানসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করে। অপর গ্রেফতারকৃতরা হলো, পৌর জামায়াতের সাবেক আমির কলেজ শিক্ষক মোঃ আলাউদ্দিন মিয়া, উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি ও কলেজ শিক্ষক মোঃ সাইফুল ইসলাম, জামায়াত নেতা মোঃ টিপু চোকদার ও মোঃ সোহরাব হোসেন সরদার এবং বরিশাল পূর্ব জেলা জামায়াতের মেহেন্দীগঞ্জ পৌর সেক্রেটারি কাজী মঈনুদ্দিন।
এদিকে বরিশাল মহানগর এলাকায় গত ২৪ ঘন্টায় পুলিশ সাড়াসি অভিযান চালিয়ে নগরীর ৬ নং ওয়ার্ড থেকে মহানগর জামায়াতের অফিস স্টাফ মোঃ রাসেল আলম, শ্রমিক কল্যানের কর্মী মোঃ জাকির হোসেন, জামায়াত কর্মী মোঃ ইউসুফ হোসেন ও শিবির কর্মী হাফেজ মোঃ সোলায়মানকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত সকলকে বিগত হরতালে গাড়ী ভাংচুর ও পুলিশের কাজে বাঁধাদান এবং হেফাজতে ইসলামের ঢাকা অবরোধ কালে সংঘর্ষে নিহত বরিশালের কলেজ ছাত্র ইব্রাহিমের জানাযা পরবর্তী মিছিলে গাড়ী ভাচুরের অভিযোগ এনে দায়ের করা পুলিশের মামলায় তাদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে কোর্টে প্রেরণ করলে আদালত তাদের জেল হাজতে পাঠায়। এরআগে বৃহস্পতিবার পুলিশ নগরীর বটতলা বাজার এলাকা থেকে মহানগর জামায়াতের সহকারি সেক্রেটারি মাওলানা মতিউর রহমান, মোঃ আবদুল হাই ও হেমায়েত উদ্দিনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে।
এদিকে কোতয়ালী থানা পুলিশ জানায় জামায়াতের হরতাল এবং উপর মহলের নির্দেশে এই গ্রেফতার অভিযান চালানো হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, সরকার ও স্বারাষ্ট মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বরিশালে জামায়াত-শিবির গ্রেফতারের বিশেষ অভিযান পরিচালণা করা হচ্ছে এবং পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে।
মহানগর ও জেলা জামায়াতে ইসলামী ও শিবির নেতকর্মীদের গণগ্রেফতার ও মিথ্যা মালা দায়েরের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বরিশাল মহানগর ও জেলা জামায়াতের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতি দাতারা হলেন বরিশাল মহানগর জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির আলহাজ বজলুর রহমান বাচ্চু, বরিশাল পশ্চিম জেলা জামায়াতের আমির অধ্যাপক মাওঃ হাবিবুর রহমান, বরিশাল জেলা পূর্ব জামায়াতের আমির অধ্যাপক আবদুল জব্বার, মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি অধ্যক্ষ জহির উদ্দিন মু. বাবর, জেলা পশ্চিম জামায়াতের সেক্রেটারি ও বাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান অলিদ এবং জেলা পূর্ব জামায়াতের সেক্রেটারি ড. এস এম মাহফুজুর রহমান। যুক্ত বিবৃতিতে তারা বলেন, সরকার ফ্যাসিবাদী ও বেপরোয়া হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করে খুনি ও জুলুমবাজ সরকার পাইকারী হারে জামায়াত-শিবিরের নিরিহ নেকর্মীদের গ্রেফতার করে মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা দিয়ে অব্যাহত হয়রানি করে যাচ্ছে।
অপর এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ জামায়াতের ডাকে আজকের হরতাল সফল করতে বরিশালবাসির প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, সরকার অবৈধ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে বিচারের নামে প্রহস করে জামায়াতকে নেতৃত্ব শূণ্য করতে চায়। সরকার ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে জুডিশিয়াল কিলিং মিশন পরিচালনার লক্ষে জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়ে প্রহসনের যে বিচার করছে তা একটি চুড়ান্ত মিথ্যাচার। আমরা সরকার ও তার দোষরদের এসকল অন্যায় ও জুলুমের বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালিয়ে যাব এবং সকল জুলুমের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবো তাই আজকের হরতালে সকলের সহযোগীতা কামনা করছি।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

নভেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০