November 13, 2018

স্যার হারা জনম যেন থাকে ॥ ইউএনও’র এক বছরের কর্মতৎপরতায় বোরহানউদ্দিন উপজেলাবাসী

--- ৮ ডিসেম্বর, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ
সততা, আন্তরিকতা আর দেশপ্রেম থাকলে একজন কর্মকর্তা খুব সহজেই সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তন করতে পারেন। ছোয়া লাগাতে পারে সাধারন মানুষের হ্দয়ে। উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মোঃ আঃ কুদদূস তার কর্মকান্ডে বোরহানউদ্দিনবাসীকে এ বিষয়টি উপলব্ধি করাতে সক্ষম হয়েছেন। দাপ্তরিক কাজের বাইরে এসে মাত্র এক বছরে শিক্ষা,স্বাস্থ্য,আইনশৃঙ্খলা, ক্রীড়া, সাহিত্য- সাংস্কৃতি, সামাজিক নিরাপত্তা, গনশুনানী, মাদক বিরোধী অভিযান, বাল্যবিবাহ নিরোধ,ইপটিজিং বন্ধসহ নানাবিধ কর্মকান্ডে উপজেলার সকল ক্ষেত্রে অভূতপূবৃ পরিবর্তন করেন। তার এই যুগোপযোগী ও গনমুখী কর্মকান্ডে তিনি উপজেলার সুবিদা বঞ্চিত মানুষের কাছে আস্তা ও ভালোবাসার প্রতিক হয়ে উঠেন।
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি দ্বীপজেলা ভোলার বোরহানউদ্দিনের আয়তন ২৮৪.৬৭ বর্গ কিমি।লোকসংখ্যা প্রায় ৩লাখ।এখানে রয়েছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহতম গ্যাস ক্ষেত্র শাহবাজপুর গ্রাস ফিল্ড”। রয়েছে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র।যার মধ্যে ২৫০ মেগাওয়াট উৎপাদনে রয়েছে বাকী ২৫০ মেগাওয়াট শীঘ্রই উৎপাদনে যাবে। রুপালী ইলিশের বৃহতম অভয়াশ্রম বোরহানউদ্দিনের মেঘনা ও তেতুলিয়া।
নির্বাহি কর্মকর্তা মোঃ আঃ কুদদূস ২৫ এপ্রিল ২০১৬ সালে এখানে যোগদান করেন।তার মেধা,মন ও মননশীলতার দ্বারা সততা, দক্ষতা,আর স্বচ্ছতার মাধ্যমে দিন- রাত কাজ করেন।আইন- শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি, সামাজিক সুবিচার নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে ,দালালদের দৌরাত্ব বন্ধে গনশুনানীর মাধমে ৩ শতাধিক বিরোধ নিস্পত্তি করেন।বিভাগীয় পর্যাযে তার এই উদ্ভাবনটি শ্রেষ্ঠ বিবেচিত হন। তার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধান ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ক্লাস নেওয়ার সুবাদে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষক- শিক্ষার্থীর উপস্থিতি শতভাগ নিশ্চিতকরণ হয়। ১২টি বিদ্যালয়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ইতিমধ্যে মিড ডে মিল চালু করেন।চলতি বছরে সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড -ডে মিল চালু করার কথা জানান তিনি। এসব কর্মকান্ডে পিএসসি,জ্এেসসি,জেডিসি এসএসসি ও দাখিল পর্যায়ে বিগত বছরের তুলনায় পাসের হার বৃদ্ধিসহ জিপিএ ৫ প্রাপ্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি পায়।প্রাথমিক শিক্ষায় অসামান্য অবদান রাখায় ইতিমধ্যে তিনি বিভাগের শ্রেষ্ঠ ইউএনও নির্বাচিত হন।মান সম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষে গাইড বই ও কোচিং বানিজ্য বন্ধকরণ এবং উপজেলার সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে একই সিলেবাস ও অভিন্ন ৩ লাখ প্রশ্ন ছাপিয়ে অর্ধবার্ষিকী পরীক্ষা গ্রহন করার ব্যবস্থা করেন।একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্চ মোকাবেলায় সরকারের ভিশন ২০২১,এসডিজি,ভিশন ২০১৪ ও ড্রিম স্কুল ধারনা এর সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে এ এলাকার সন্তানদেরকে দক্ষ,আদর্শ ,দেশপ্রেমিক ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে উপজেলা প্রশাসন বোরহানউদ্দিন এর উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেন উপজেলা প্রশাসন স্কুল(ইউপিএস)। ১৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার না থাকায় নিজ উদ্যোগে ও স্থানীয় এমপির সহযোগীতায় ওই সমস্ত প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার প্রদান করেন। জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে জাতীর জনকের স্মরনে ১৪ আগষ্ট বন পরিবেশ উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাবক,স্থানীয় সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল,নুরনবী চৌধুরী শাওন ও জেলার প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ১ মিনিটে ১ লাখ ২১ প্রজাতির বৃক্ষ রোপণ করে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেন। উপজেলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া রক্ষাবাধের ৩৪ কিলোমিটার এলাকায় বজ্রপাত নিরোধক তথা সবুজ বেস্টনি নির্মানের লক্ষে ২০ হাজার তালগাছ রোপণ করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে সরকারী আব্দুল জব্বার কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক এসএম গজনবী ও মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ বলেন,মান সম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নির্বাহি কর্মকর্তার ভূমিকা যুগান্তকারী।বোরহানুদ্দিন- বাসী তাকে যুগ যুগ স্মরন রাখবে। ভ্রমন পিয়াসুদের চিত্তবিনোদনের জন্য তেতুলিয়া রিভার ইকোপার্ক নামক নান্দনিক পার্ক তৈরী করেন।যুব সমাজকে মাদক থেকে দুরে রাখার জন্য উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ,মহিলা ক্রীড়া সংস্থা ও শিল্পকলা একাডেমির ভবন স্থাপন করেন।শিল্পকলায় ৮টি বিভাগে বর্তমানে ১৭০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে।শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে উপজেলায় এই প্রথম বার নজরুল ও রবীন্দ্র জন্ম্জয়ন্ত্রী,দেশী ফল মেলা ,৩দিন ব্যাপী অমর একুশে বই মেলা ও পহেলা বৈশাখ উদযাপ,মাহে রমজান উপলক্ষে কুরআন তেলাওয়াত,হামদ/নাত,আজান প্রতিযোগীতা ২০১৬,১৭ উদযাপন করেন। ইতিমধ্যে শিল্পকলার শিক্ষার্থী রিয়ন্তী নৃত্যের ২শাখায় বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ নৃত্য শিল্পী নির্বাচিত হয়েছে।এছাড়া ও কয়েকজন শিক্ষার্থী জাতীয় পর্যায়ে প্রতিযোগীতা করে বিজয়ী হয়েছে। ক্রীড়া সংস্থার মাধ্যমে বৃহত পরিসরে আলী আজম মুকুল গোল্ডকাপ ফুটবল টুনামেন্ট ২০১৬, ২০১৭, হা-ডু-ডু টুনামেন্ট,নৌকা বাইচ ও ঘুডি উৎসব করে বেশ আলোডন সুষ্টি করেন।মাশরাফি কিংবা সাকিব এর মতো ক্রিকেটার সৃষ্টিতে উপজেলা ক্রিড়া সংস্থার আয়োজনে ১ডিসেম্বর থেকে শুরু করেন ক্রিকেট ট্যালেন্ড ট্রেনিং ক্যাম্প ২০১৭।এর মাধ্যমে আগামী দিনের দেশ সেরা প্রতিভাবান ক্রিকেটার সৃষ্টি হবে।ৃহিন্দু সম্প্রদায়ের সন্তানদের সঠিক উচ্চারণে গীতা পাঠের জন্য একাধিক গীতা স্কুল চালু করেন। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইঞ্জিনিয়ার আহমদ উল্লাহ বলেন,বর্তমান নির্বাহি কর্মকর্তা বোরহানউদ্দিনে গন জাগরণ সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছে।শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে তৈরী করেন দৃষ্টিনন্দন শিশুপার্ক,অফিসার্স ক্লাব ও শহিদ মিনার। অফিসার্স ক্লাবে সপ্তাহের ২দিন বসে বিভিন্ন দপ্তর প্রধানদের সমস্যা শুনেন এবং দাপ্তরিক কাজের গতিশীলতা ও সেবা গ্রহনকারীদের হয়রানী বন্ধে পরামর্শ প্রদান করেন।এছাড়া ও প্রতিমাসে কর্মকর্তাদের দক্ষতা পরিমাপ ,স্বীকৃতি প্রদান ও পুরুস্কার প্রদান করেন।যার ধারাবাহিকতায় ইতিমধ্যে ৩৬ জনকে পুরুস্বৃত করেন। ১০লাখ টাকা ব্যয়ে তার সম্মেলন কক্ষটি ভিডিও কনফারেন্সি সিস্টেম চালুসহ আধুনিকরণ করেন।যেখানেই বাল্য বিবাহ সেখানেই নির্বাহি কর্মকর্তার উপস্থিতি,মুষলধারার বৃষ্টি আর গভীর রাত উপেক্ষা করে অভিযান চালিয়ে ২শতাধিক বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন।বাল্য বিবাহের হার ৮৩ভাগ থেকে কমিয়ে প্রায় শূন্যের কোটায় আনতে সক্ষম হন।মা ইলিশ ও জাটকা রক্ষায় উত্তাল মেঘনা ও তেতুলিয়া নদীতে গভীর রাত পর্যন্ত শতভাগ সফল অভিযান পরিচালনা করেন।প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত ফেয়ার প্রাইস কর্মসূচীতে সুবিদাভোগীদের তালিকা উন্মুক্ত স্থানে সাটিয়ে কালোবাজারীদের পরাস্ত করে কর্মসূচীটি সফল করেন।তার উদ্যোগেই নির্মিত হয় পাবলিক লাইব্রেরী ও উপজেলা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্লাব।উপজেলা চত্বরে অবস্থিত ৩২ বছরের পুরাতন ও জরাজীর্ণ মসজিদটি সুধীজনদের সহযোগীতা নিয়ে প্রায় ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে আধুনিকায়নের কাজ শুরু করেন।অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করে ৩কোটি টাকা মূল্যের সরকারী খাসজমি পুনুরুদ্বার করেন।হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসগুলো যথাযথভাবে পালনের জন্য অনুদান প্রাপ্তি ও প্রয়োজন অনুসারে মন্দিরগুলোতে অনুদান প্রদান ,সংস্কার, নলক’প স্থাপন ও ঘাটলা সংস্কার করেন।শারদীয় দুর্গোৎসব ২০১৬,২০১৭ উপলক্ষে চন্ডী/গীতা পাট,আরতিনৃত্য, ও ভক্তিমূলক গানের প্রতিযোগীতা ও পুরুস্কার বিতরণ করেন। উপজেলা হিন্দু -বৌদ্ধ- খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অনিল কুমার দাস এ তথ্য নিশ্বিত করে বলেন,বিগত যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে আমরা উত্তম সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির মধ্যে থেকে ধর্মীয় উৎসবগুলে পালন করছি।উপজেলা নির্বাহি অফিসারের কার্যালয় ও উপজেলা ভ’মি অফিসে দূর্নীত বন্ধের জন্য সার্ভিস ডেলিভারী সেন্টার স্থাপন,অভিযোগ বক্্র ও হটলাইন চালু করেন।তার নিজস্ব কার্যালয় হতে দ্রুততম সময়ে সরকারী সেবা পেতে মোবাইল অফিসিং ব্যবস্থা চালু করেন। ফলে গ্রামীণ সহজ সরল সাধারন জনগনের কাছে তিনি প্রিয় মানুষে পরিনত হয়েছেন।উপজেলার সেবা গ্রহনকারী বড় মানিকা ইউনিয়নের উত্তর বাটামারা গ্রামের মরিয়য় বেগম (,পাওনা টাকা আদায়ে) বোরহানউ্িদদন পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের লাকি বেগম,( যৌতুকের দাবিতে মারপিঠ),সাচড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সহিদ পঞ্চাযেত, (অর্থ আন্তসাৎ), গংগাপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের শারমিন বেগম( জমি দখল),হাসান নগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সুরমা বেগম( যৌতুক),টবগী ২নং ওয়ার্ডের নিত্য লাল( জমি বিরোধ),কাচিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইসমাইল (জমি বিরোধ),কুতুবা ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের আবু তাহের( বল প্রযোগে জমি দখল),দেউলা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মনোয়ারা বেগম ,পক্ষিয়া ইউনিয়নের আয়েশা-বলেন,স্যারের কারনে আমরা স্বামীর মাইর দোর খাওয়া থেকে রক্ষা,বখাটের উৎপাত থেকে মেয়েদের রক্ষা, পাওনা টাকা আদায়,অবৈধভাবে অন্যের দখলকরা জায়গা জমি ফেরত পাইছি।তারা আরো বলেন,আমাগো এই স্যার হারা জনম যেন এই থানায় থাকে। বোরহানউদ্দিন বাজার ব্যবসায়ী সমিতির আহবায়ক কায়কোবাদ মিয়া,বোরহানউ্িদদন উন্নয়ন ফোরামের আহবায়ক সাংবাদিক শিমুল চৌধুরী,যুগ্ন আহবায়ক প্রভাষক মনিরুজ্জামান বলেন,এমন কোন সেক্টর নেই যেখানে ইউএনওর কর্মতৎপরতার সুন্দর ছোয়া লাগেনি।মেঘনা রিভার ইকোপার্ক এর কাজ চলমান রয়েছে।
পৌর মেয়র মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন,উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা সৎ,দক্ষ,কর্মঠ মানুষ।আমি তাকে খুব পছন্দ করি।
বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মোঃ আঃ কুদদূস এক প্র্েশ্নর জবাবে ইত্তেফাক কে জানান,এসডিজি ও ভিশন ২০২১ এর লক্ষ্যগুলো দ্রুত অর্জন করার জন্য বানিজ্যমন্ত্রী, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও মান্যবর জেলা প্রশাসক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সরকারী- বেসরকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয় সাধন করে কাজ করে যাচ্ছি।আশা করি ২০২০ সালের মধ্যে বোরহানউদ্দিন উপজেলা বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ উপজেলায় পরিনত হবে।
ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাং সেলিম উদ্দিন তার বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ ও গনশুনানীসহ কয়েকটি অর্জনের কথা উল্লেখ করে বলেন,আমার দৃষ্টিতে ভোলায় কর্মরত ৭জন ইউএনওর মধ্যে বোরহানউদ্দিনের ইউএনও বেশী সক্রিয় ও ইনোভেটিভ।
ভোলা -২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল এমপি বলেন,বর্তমান ইউএনও সৎ,কর্মঠ ও পরিশ্রমী।ওনি যোগদানের পর আমার উপজেলার চেহারা পাল্টে গেছে।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

নভেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০