July 27, 2017

আগামীকাল বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের বাজেট ঘোষণা

--- ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩

Barisal-today-citycorporati

আসমা আক্তার ॥ আগামীকাল বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি)’র ২০১৩-১৪ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা হবে। নতুন কোন কর আরোপ বা উন্নয়ন প্রকল্প ছাড়াই আগামীকাল বুধবার ঘোষণা হবে ২’শ ৭৫ কোটি টাকার বাজেট। বিসিসির নির্ভরযোগ্য তথ্য মতে, এ বছর বাজেটে গত বছরের তুলনায় বরাদ্দের পরিমান কম। থাকছে না কোন নতুন উন্নয়ন প্রকল্প। তবে সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরনের সময়ে যে সকল কাজ চলমান ছিল, তা এই বাজেটে অন্তর্ভূক্ত থাকবে বলে জানা গেছে। নির্ধারিত সময়ের ২ মাস অতিক্রম হওয়ার পর ঘোষিত হচ্ছে বাজেট।

বিসিসি’র ভারপ্রাপ্ত মেয়র আলতাফ মাহমুদ সিকদার ১১ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় বিসিসির সভাকক্ষে বাজেট ঘোষণা করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, সময় স্বল্পতার কারণে ব্যাপকতা ছাড়াই ঘোষিত হচ্ছে বাজেট। বিসিসি মেয়র বিএনপি সমর্থিত হওয়ায় সরকারি বরাদ্দ ঘাটতি থাকতে পারে এমন গুঞ্জনও রয়েছে। এদিকে নির্ধারিত সময় পেরিয়ে বাজেট ঘোষণার প্রস্তুতি নেয়ায়, কোন ধরনের প্রাক আলোচনা সম্ভব হয়নি বলে দাবি কর্তৃপক্ষের। বিভিন্ন জটিলতার মধ্যে বাজেট ঘোষণা হওয়ায় তা জনগণের আশা আকাঙ্খা কতটা পূরণ করতে পারবে এমন প্রশ্ন অনেকেরই। আগের বছর বাজেটে ৩’শ ২২ কোটি ২৪ লাখ ৮৪ হাজার ৯৯২ টাকা ঘোষিত হয়েছিল। যার মধ্যে বর্তমানে জাইকা ও এডিপির বরাদ্দকৃত বেশ কয়েক’শ কোটি টাকা কাজ চলমান আছে। গত বছর বাজেটে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেলের নির্মাণ পরিকল্পনা, জেল খাল, লাকুটিয়া খাল, সাগরদী খাল ও নবগ্রাম খাল খনন প্রকল্প। নগরীতে ১৫০ কি.মি. সড়কে ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে সোলার বাতি স্থাপন প্রকল্প ছিল। যার কতটা এবারের বাজেটে সংশোধন হবে বা পুনরায় নির্ধারণ করা হবে, তা এখন ভাবনার বিষয়। এ বিষয়ে বিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র দাস বলেন, সর্বসাকুল্যে জনগণের কথা চিন্তায় রেখেই বাজেট ঘোষণা হবে।

এদিকে বছর ঘুরে নতুন বাজেট এলেও বিগত কয়েক বছরের অলঙ্কার হিসেবে খ্যাত ১৩ টি উন্নয়ন প্রকল্প আলোর মুখ দেখেনি। গত অর্থবছরের বাজেটে প্রকল্পগুলো অনুদাননির্ভর উন্নয়ন খাতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, বাজেট পেশের আগে জনগণের মতামত না নেয়া আর অদক্ষতার কারণে প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটছে না। বিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র দাস জানান, প্রকল্পগুলো মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের অপেক্ষায়। জনগণ চাইলেই রাতারাতি তা বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। প্রতিশ্রুতির ফিরিস্তি দিয়ে বরিশাল সিটি করপোরেশনে প্রতি বছর ঘোষণা করা হয় বিশাল আকারের বাজেট। জনগণকে খুশি করতে এ বাজেটে উন্নয়নের ছড়াছড়ি তুলে ধরা হয়। কিন্তু বছর শেষে তা বাস্তবায়নের ঝুলিতে অতিসামান্যই যোগ হতে দেখা যায়। ২০১২-১৩ অর্থবছরের বাজেটে ঘোষিত এমন ১৩টি উন্নয়ন প্রকল্প ফাইলবন্দি হয়ে আছে।

অলঙ্কার প্রকল্প হিসেবে খ্যাত এগুলোর জন্য বরাদ্দ ধরা হয়েছিল ৩২ কোটি ৯ লাখ টাকা। ১৩টি প্রকল্প হচ্ছে বরিশাল সিটি করপোরেশনে ভূমি অধিগ্রহণসহ ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্পের প্রস্তাবিত বাজেট ৫ কোটি টাকা, জেল খাল-ভাটার খাল, সাগরদী খাল সংরক্ষণসহ খালগুলো উদ্ধার ও পুনঃপ্রকল্পের বাজেট ৫ কোটি টাকা, বরিশাল কেন্দ্রীয় নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল বর্ধিতকরণ এবং উন্নয়ন প্রকল্পে ৫ কোটি টাকা, সিটি করপোরেশনের নতুন নগরভবন নির্মাণ প্রকল্পে ৫ কোটি টাকা, সিটি করপোরেশন এলাকায় ভূমি অধিগ্রহণসহ তিনটি অঞ্চলে নতুন কবরস্থান, ১টি শ্মশান ও ১টি খ্রিস্টান সমাধি নির্মাণ প্রকল্পে ৫ কোটি টাকা, বরিশাল শহর রক্ষাবাঁধ ও নিম্নাঞ্চলসহ বস্তি  এলাকায় ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন প্রকল্পে ৫ কোটি টাকা, বরিশাল হাটখোলা মার্কেট নির্মাণ ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা, সুইপার কলোনি নির্মাণ প্রকল্প ২০ লাখ টাকা, বদ্ধভূমি সৌন্দর্যবর্ধন ও সংরক্ষণ প্রকল্প ১৫ লাখ টাকা, শিশুবান্ধব নগরী ১০ লাখ টাকা, শিশু পার্ক নির্মাণ প্রকল্প ১০ লাখ টাকা, গরুর হাট উন্নয়ন প্রকল্প ৩ লাখ টাকা এবং বাঁশের হাট স্থাপন প্রকল্প ১ লাখ টাকা। বিসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী এমএ মোতালেব জানান, বাজেটে ঘোষণা করা প্রকল্পগুলো মন্ত্রণালয়ে পেশ করা হয়।

পরে তা বিভিন্ন স্তরে পৌঁছে কোনো কোনো প্রকল্পে অর্থ বরাদ্দ দেয় সরকার। তিনি বলেন, বাজেটে প্রকল্প ঘোষণা করা হলেও তা বাস্ত বায়ন হবে কিনা সে বিষয়ে আগেভাগে কিছুই বলা যায় না। সব মিলিয়ে অলঙ্কার ক্ষ্যাত এই প্রকল্প গুলো আদৌ আলোর মূখ দেখবে কিনা এবিষয়ে সন্দিহান নগরবাসী।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

জুলাই ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১