July 27, 2017

শুক্রবার বিকেলের নাস্তা

--- ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৩

ranna banna

রেশমা ইয়াসমিন ॥
গিলা-কলিজার ডালচা ঃ
উপকরণ ঃ মুরগির গিলা ও কলিজা, মাথা ও পা (কেটে বেছে ধুয়ে পরিষ্কার করে নেওয়া) ৭০০ গ্রাম, ছোলার ডাল এক কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপের একটু বেশি, তেঁতুলের ক্বাথ দুই টেবিল চামচ, আদা-রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, ধনে গুঁড়া দুই চা-চামচ, জিরা বাটা দেড় চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া এক চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, দারুচিনি দুই টুকরো, তেজপাতা দুটি, তেল সিকি কাপ, ঘি সিকি কাপ, জিরার ফাঁকি (টেলে নেওয়া) আধা চা-চামচ, গোটা শুকনা মরিচ চারটি, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, চিনি তিন চা-চামচ, শুকনা মরিচ বিচিসহ আধা ভাঙা দুই চা-চামচ।
প্রণালি ঃ ছোলার ডাল ধুয়ে আগের দিন রাতে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে পানি ঝরিয়ে চার কাপ পানি ও আধা চা-চামচ লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে রাখুন। ফ্রাইপ্যানে তেল গরম করে সিকি কাপ পেঁয়াজ হালকা বাদামি করে ভেজে সব বাটা ও গুঁড়া মসলা দিয়ে ভাজুন। সামান্য পানি ও লবণ দিয়ে কষিয়ে নিন। আধা কাপ পানি দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষিয়ে নিয়ে মুরগির পাগুলো দিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন। পাঁচ মিনিট পর ঢাকনা খুলে কিছুক্ষণ নেড়ে মুরগির গিলাগুলো দিয়ে দিন। এরপর পর্যায়ক্রমে কলিজা ও মাথা দিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন। ঝোল টেনে এলে সেদ্ধ করা ডাল পানিসহ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নাড়ুন। আঁচ কমিয়ে ঢেকে দিন। দু-একবার ফুটে উঠলে তেঁতুলের ক্বাথ ও চিনি দিয়ে নাড়–ন। সিকি কাপ পানি দিয়ে ঢেকে আঁচ কমিয়ে দিন।ফ্রাইপ্যানে ঘি গরম করে তেজপাতা, দারুচিনি ও গোটা শুকনা মরিচের ফোড়ন দিয়ে সিকি কাপ পেঁয়াজ লাল করে ভেজে ডাল বাগার দিন। ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে পাঁচ মিনিট ঢেকে রাখুন। এবার ঢাকনা খুলে জিরার ফাঁকি দিয়ে নেড়ে ঢেকে চুলা বন্ধ করে দিন। পাঁচ মিনিট পর পরিবেশন পাত্রে ঢেলে ওপর থেকে শুকনা মরিচ ভাঙা ছিটিয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন।

শুঁটকি ভুনা
উপকরণ:
লম্বা বেগুন চিকন লম্বা কাটা ৪৭৫ গ্রাম, চিকন সজনে ডাঁটা ১০০ গ্রাম, আলু চিকন করে কাটা ২০০ গ্রাম, লইট্টা ও ফাঁইস্যা শুঁটকি ৭৫ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি এক কাপ, রসুন কুচি ৪ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়া এক চা-চামচের একটু কম, ধনে গুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া দুই চা-চামচ, চিনি আধা চা-চামচ অথবা স্বাদ অনুযায়ী, লবণ দেড় চা-চামচ, আদা, রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, পাকা টমেটো চার টুকরো করা দুটি, কাঁচা মরিচ ফালি চারটি, সয়াবিন তেল আধা কাপের একটু বেশি।
প্রণালি:
বেগুন কেটে সামান্য লবণ ও হলুদ মেখে ২০ থেকে ৩০ মিনিট রেখে দিন। তারপর কালো পানি ফেলে দিয়ে ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরান। এভাবে রান্না করে খেলে চুলকানি অনুভব হবে না। আলু ও সজনে ডাঁটা ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এক টেবিল চামচ তেল গরম করে আলু ও সজনে ডাঁটা কিছুক্ষণ ভেজে নিয়ে বেগুন দিন। আধা চা-চামচ লবণ ও সিকি চামচ হলুদ দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়–ন। সামান্য হাত ধোয়া পানি দিয়ে নেড়ে মৃদু আঁচে সেদ্ধ করে নামান। অন্য একটি কড়াইয়ে তেল গরম করে বাকি পেঁয়াজ দিয়ে হালকা বাদামি করে ভেজে নিয়ে রসুন দিয়ে কিছুক্ষণ ভাজুন। সব বাটা ও গুঁড়া মসলা এবং চিনি দিয়ে নাড়–ন। একটু পানি দিয়ে ভালো করে কষিয়ে শুঁটকি দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষিয়ে নিন। সেদ্ধ করা সবজিগুলো দিয়ে ভালো করে মেশান। কষানো হলে এক কাপ পানি দিয়ে আঁচ বাড়িয়ে ঢেকে দিন। ফুটে উঠলে ও পানি শুকিয়ে গেলে চেরা কাটা মরিচ দিয়ে নেড়ে ঢেকে আঁচ কমিয়ে দিন। ভুনা ভুনা হয়ে তেলের ওপরে উঠলে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

জুলাই ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১