July 23, 2017

বরিশালে আলফা-অটো চালকদের সংঘর্ষ ॥ শতাধিক যান ভাংচুর ॥ আহত-১৫ ॥ আটক-৮

--- ২৫ নভেম্বর, ২০১৩

news-today-alpha

বরিশাল টুডে ॥ যাত্রী বহন করাকে কেন্দ্র করে সোমবার দিনভর বরিশাল নগরীতে আলফা ও ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সার মালিক-চালকদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে র‌্যাবের টহলগাড়ীর উপর হামলা চালিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।  পরে লাঠি চার্জ করে র‌্যাব-পুলিশ নগরীর রূপাতলী বাসটার্মিনাল এলাকার পরিস্থতি শাস্ত করেছে।

এদিকে এ ঘটনায় উভয় পক্ষ শতাধিক আলফা ও অটো রিক্সা ভাংচুর করা হয়েছে। এছাড়া সংঘর্ষে আহত হয়েছে কমপক্ষে ১৫ জন। সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনায় পুলিশ বিভিন্ন স্থান থেকে এ পর্যন্ত ৮ জনকে আটক করেছে।

উভা পক্ষ উভয়ের শাস্তি দাবী করে নগরীতে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে আলফা ও ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সার চালকরা।

প্রত্যক্ষদোর্ষীরা জানান, সোমবার বেলা ১২ টার সোহাগ নামের এক অটো চালক নগরীর নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে যাত্রী নিয়ে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দিকে রওনা হলে তাকে বাধা দেয় আলফা-মাহিন্দ্র শ্রমিক ইউনিয়নের লাইন ম্যান শহিদ। তখন সোহাগকে মারধর করা হয়। পরে সোহাগ নগরীর নবগ্রাম রোড চৌমাথায় এসে আরো অটো চালকদের নিয়ে বিক্ষোভ করে। এক পর্যায় ওই স্থলে থাকা ২১৮ নম্বরের খালিল মিয়ার আলফা-মাহিন্দ্রের উপর হামলা চালায় অটো চালকরা। এ সময় অটো চালকরা আলফাসহ চালক খলিলকে বেধম মারধর করে। পরে পুলিশ ঘটনা স্থানে পৌছালে অটো চালকরা পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা আহত খলিলকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এদিকে এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে আলফা চালকরা। তারা একের পর এক অটো রিক্সা ভাংচুর করতে শুরু করে দেয়। ফলে ক্ষিপ্ত হয় অটো চালকরা। এক পর্যায় উভয় পক্ষ বিক্ষুব্ধ হয়ে নগরীর নথুল্লাবাদ থেকে শুরু করে টিটিসি’র সামনে, সিএ্যান্ডবি পুল, আমতলা মোড়, বান্দ রোড, লঞ্চঘাট, সাগরদী, রূপাতলী বাস টার্মিনাল ও নতুন বাজার এবং হাসপাতাল রোড এলাকায় শতাধিক অটো ও আলফা ভাচুর করে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটে। এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের চালক রিপন, খলিল, মানির, সোহাগ, শাহিন, জাসিম, সাজিব, শাহিদসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৩ জনকে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও এক জনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া বাকী আহতরা সাধারণ চিকিৎসা নিয়েছেন।

অপরদিকে দুপুর ২ টার দিকে নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল ও রূপাতলী বাস টার্মিনাল এলাকায় উভয় পক্ষ মিছিলসহ বিক্ষোভ করে। নথুল্লাবাদ এলাকায় বিক্ষোভ শুরু হলে পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করে। কিন্তু রূপাতলীতে বেপরোয়া হয়ে উঠে উভয় পক্ষ। এক পর্যায় বিক্ষোভকারীরা উত্তেজিত হয়ে র‌্যাবের টহলা গাড়ীর উপর হামলা চালালে র‌্যাব-পুলিশ লাঠি চার্জ’র মাধ্যমে পরিস্থিতি শান্ত করে।

সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনায় পুলিশ এ পর্যন্ত রূপাতলী বাস টার্মিনাল, নথুল্লাবাদ ও নতুন বাজার এলাকা থেকে উভয় পক্ষের ৮ চালককে আটক করছেন বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী থানার ওসি শাখয়াত হোসেন। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ২ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। বাকী আটকৃতরা পুলিশের টহলগাড়ীতে আছেন। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। বিষয়টি মিমাংসার চেস্টা করা হচ্ছে।

এ ব্যপারে অটো রিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি এম এম শাহিন দাবী করে আরো বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে অটোরিক্সা যাত্রী বহনে বাধা দিয়ে আসছে আলফা মাহিন্দ্রর মালিক-চালকরা। তাই আমাদের চালককে মারধরের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করায় সোমবার দিন ভর তাদের অর্র্ধশত অটো রিক্সা ভাংচুর করেছে অটো চালকরা। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে এর অন্যায়ের সুরহা না হওয়া পর্যন্ত কোন অটো চলাচল করবে না। এমনকি আরো বড় আন্দোলন শুরু করা হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
অন্যদিকে আলফা-মাহিন্দ্র টেম্পু শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লিটন মোল্লা জানান, অন্যায় ভাবে আমাদের আলফা-মাহিন্দ্র ভাংচুরসহ চালকদের মারধর করেছে অটো চালকরা। তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে আমারা ধর্মঘটসহ কঠোর আন্দোলনে যাবো। তাদের অর্ধশত আলফা-ভাংচুর করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেছেন।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

জুলাই ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১