September 21, 2017

শেবাচিম হাসপাতালের ইন্টানী ডাক্তারদের কর্মবিরতি

--- ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪

index

জে.খান স্বপন ॥ লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে বরিশাল শের-ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসাপাতাল ইন্টার্নী ডাক্তাররা কর্মবিরোতির ডাক দিয়েছে। একই ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার সকল ক্লাস বর্জন করেছে মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা। অপরাধীদের শাস্তিসহ ৫ দফা দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ইন্টার্নীরা কর্মবিরতি ও শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে যাবে বলে ঘোষনা দিয়েছে। এদিকে এ ঘটনার প্রেক্ষিতে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে হাসপাতাল ও কলেজ কর্তৃপক্ষ। বাকীতে কেন্টিনে খাবার খাওয়াকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাতে মেডিকেল কলেজের সাবেক জিএস আনিচুর রহমান ও ইন্টার্নী ডাক্তার আব্দুর রহমান রিজভীকে মারধর করেছিলো কেন্টিন মালিক ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মজিবুর রহমান’র ছেলে মোঃ সবুজ রহমান। এরই প্রতিবাদে শনিবার সকাল ৯ টার পর দেড় শতাধীক ইন্টার্নী ডাক্তার ও ৩ শতাধিক শিক্ষার্থী সংগবদ্ধ ভাবে আনোদল শুরু করে।

আন্দোলনের এক পর্যায় শিক্ষার্থী ও ইন্টার্নী ডাক্তাররা ক্লাস বর্জন যথাক্রমে কর্মবিরোতীর ডাক দেয়। আন্দোলনকারীরা হামলাকারী কাউন্সিলরের ছেলের বিচারও কেন্টিন বন্ধ করে দেয়াসহ ৫ দফা দাবী জানিয়ে কলেজ অধ্যক্ষ ডাঃ রনজিৎ চন্দ্র খা এবং হাসপাতাল পরিচালক ডাঃ মুঃ কামরুল হাসান সেলিম’র নিকট স্বারক লিপি পেশ করেন। এর আগে তারা উভয়ের কার্যলয় ঘেরাও করে ছিলো।
এ ব্যপারে শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুঃ কামরুল হাসান সেলিম জানান, শিক্ষানবিশ চিকিৎসকদের কাছ থেকে লিখিত চিঠি পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির পরামর্শ অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কলেজ অধ্যক্ষ ডাঃ রনজিৎ চন্দ্র খা জানান, ঘটনাটি হাসপাতালের কেন্টিনে। তাই হাসপাতাল পরিচালক বিষয়টি দেখছেন। তবে ক্যাম্পাসে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপনের বিষয়টি সম্পকে পুলিশ কমিশনারের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে। ইন্টানী ডাক্তার এসোসিয়েশনের সভাপতি ডাঃ আবু তালিব মোঃ আব্দুল্লাহ মারুফ জানান, দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন অব্যহত থাকবে। তবে জরুরী রোগীদের সমস্যার কথা চিন্তা করে কয়েকটি ওয়ার্ডে ৮/১০ ইন্টার্নীকে কর্মস্থলে থাকার অনুমতি দেয়া হয়েছে।  শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে আন্দোলনের নেতৃত্ব দানকারী ছাত্রলীগের কলেজ শাখার আহ্বায়ক হারুন উর রশীদ জানান, আন্দোলনের প্রাথমিক ধাপ হিসেবে শনিবার সকল ক্লাস বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত এর ধারা অব্যহত থাকবে। এদিকে ক্যান্টিন মালিক ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ মজিবুর রহমান জানান, ‘পাওনা টাকা চাওয়ায় শিক্ষানবিশ চিকিৎসকরা আমার ছেলে সবুজকে মারধর করে উল্টো অভিযোগ তুলে কর্মবিরতিতে গেছেন।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

সেপ্টেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০