September 21, 2017

ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে বিএনপি প্রার্থীদের নির্বাচন বর্জন

--- ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪

upzilla-election_barisal

শাহিন সুমন ॥ বরিশালের গৌরনদী ও বাকেরগঞ্জ উপজেলায় বিএনপি-সমর্থিত ও বিদ্রোহী প্রার্থী সহ জাতীয় পার্টির ও বাকেরগঞ্জের আ’লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বিএনপির চেয়ারম্যান, ভাইসচেয়ারম্যান সহ চার প্রার্থী ভোটবর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। গৌরনদী স্থানীয় বিএনপি আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে আগামীকাল আধা বেলা হরতাল আহবান করেছে। আজ বুধবার সকাল ১০টার দিকে গৌরনদী প্রেস ক্লাব চত্বরে সাংবাদিকদের কাছে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন দুই উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইসচেয়ারম্যান (পুরুষ) ও মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থী। ভোটবর্জন করা প্রার্থীরা হলেন- বিএনপি সমর্থিত চেয়্যারম্যান প্রার্থী আবুল হোসেন মিয়া (মোটরসাইকেল) ও বিদ্রোহী প্রার্থী লোকমান হোসেন খান (দোয়াত কলম) এবং একই দলের বিদ্রোহী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জহির সাজ্জাদ হান্নান (উড়োজাহাজ), মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান তাছলিমা পারভিন (কলস) প্রতিক। গৌরনদী প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আবুল হোসেন মিয়া জানান, উপজেলার সবগুলো কেন্দ্রে ভোট কারচুপি চলছে। পাশাপাশি বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকদের মারধর ও সাধারণ ভোটারদের ভোটাধিকার প্রয়োগে বাধা দেয়া হচ্ছে। তাই কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী ভোট বর্জনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থেকে একই অভিযোগ করেন বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী লোকমান হোসেন খান, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী জহির সাজ্জাদ। সকাল থেকেই গৌরদী উপজেলার ৪৫টি কেন্দ্রের অধিকাংশ কেন্দ্রের বাহিরে চোখে পড়ার মত ভোটার দেখা যায়নি ছিলো না ভোটারদের কোন লাইন। মাহিলাড়া এ এন মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল থেকে দুপুর সাড়ে ১১টা পর্যন্ত কোন ভোটারের লাইন দেখা যায়নী। দুই একজন করে ভোটাররা এসে ভোট দিয়ে যাচ্ছেন। সকাল ১১টা পর্যন্ত ৫% ভোট কাষ্ট হয়েছে কিনা তা নিয়ে রয়েছে সন্দেহ। তারপরেও ভোটের বাক্স গুলো অধিকাংশ দেখা যায় ভরা। ভোট কক্ষগুলোতে সরকার দলের প্রার্থীদের এজেন্ট ছাড়া বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান ও ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থীদের কোন এজেন্ট পাওয়া যায়নী। কাছেমাবাদ ছিদ্দিকিয়া কামিল মাদ্রাসায়, আশোকাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রয়েছে একই রুপ।

এখানে সাংবাকিরা জাওয়ার পরপরই সরকার দলের প্রার্থীদের কর্মিরা দ্রুত এসে লাইনে দাড়ান। দুইদিন পূর্বে গৌরনদী উপজেলায় সেনা বাহিনী, বিজিপি ও র‌্যাব মোতায়েন করা হলেও একমাত্র বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কে সেনাবাহীনী, বিজিপি ওর‌্যাবের গাড়ি দেখা গেলেও কোন কেন্দ্রেই এদের কে দেখা যায়নী। পুলিশ করছে দায়ছাড়া ডিউটি। এব্যাপারে বিএনপি সমর্থিত বিদ্রোহী প্রার্থীরা অভিযোগ করে জানান রিটানিং অফিসার, নির্বাচন কর্মকর্তা ও আইন শৃঙ্খলা বাহীনীর কাছে অভিযোগ দিয়েও কোন ফল পাইনি। দুপুর ১২টার দিকে কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সদস্য রহমান পারভেজ জাতীয় পার্টির মনোনিত প্রার্থী জাকির হোসেনের সন্ধানে কেন্দ্রেগেলে সে কেন্দ্র থেকে রহমান পারভেজ ও পুলিং এজেন্ট নিহার সরকার কে আটক করে নিয়ে যায় নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট। তাদের কেন আটক করা হয়েছে সে বিষয়ে ম্যাজিষ্ট্রেট কোন মুখ খোলেননি। গত রাতে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আ’লীগের ক্যাডাররা মটর সাইকেল মহড়া দিয়ে বিএনপি সমর্থিত নেতা কর্মিদের বাসা বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও ভোট কেন্দ্রে নাআসার জন্য ভয় ভিতি দেখিয়ে আসে। ভোট কারচুপির অভিযোগে স্থানীয় বিএনপি আগামীকাল অর্ধ দিবস হরতালের ডাক দিয়েছে। এছাড়া জাতীয় পার্টির মনোনিত প্রার্থী জাকির হোসেন সহ অপর দুই ভাইস পুরুষ ও মহিলা চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচন বর্জন করেছে। এদিকে গৌরনদী উপজেলার সরিকল কেন্দ্র জাল ভোট দেয়ার সময় তাদের আটক করতে না পারায় দায়িত্ব অবহ্যালার অভিযোগে এস আই নাছির ও কনষ্টবল নরু মিয়াকে জেলা পুলিশ সুপার এহসান উল্লাহ প্রত্যাহার করে নিয়েছে।

অপরদিকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলায় ৯৪ই টি ভোট কেন্দ্রে সকাল থেকে ভোট গ্রহন শুরু হলেও সেখানেও রয়েছে একই অবস্থা। সকাল থেকে ছিলোনা কোন ভাটারদের লাইন। একমাত্র আ’লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান ও ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থীদের এজেন্ট ছাড়া বিএনপি ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সকল পুলিং এজেন্ট দের ভোট কেন্দ্র থেকে বেরকরে দেয়াসহ বিএনপি সমর্থক নেতা কর্মিদের বের করেদিয়েছে আ’লীগের নেতা কর্মিরা। এ উপজেলায় আজ সকাল ১২টার দিতে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এস এম আতিকুর রহমান নির্বাচন বর্জন করার ডাক দিয়েছে। এছাড়াও বিএনপির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী খলিলুর রহমান, বিদ্রোহী প্রার্থী অধ্যক্ষ মশিউর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান নাসির হাওলাদারসহ মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থী মীর্জা খাদিজা বেগম আজ বেলা ২টায় ভোট কাচুপির অভিযোগ, নেতা কর্মিদের মাধর ও পুলিং এজেন্ট ভোট কেন্দ্র থেকে বেরকরেদেয়ার অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেন। দুপুর সাড়ে ২টা পর্যন্ত এ উপজেলায় ২৫% ভোট কাষ্ট হয়নি। গৌরনদী পৌরসভাসহ ৭টি ইউনিয়নে ৪৫টি ভোট কেন্দ্রের ২৯৫টি ভুতে মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ২৫ হাজার ২৮৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬২ হাজার ৭২০ জন ও মহিলা ভোটার ৬২ হাজার ৫৬৬ জন। এছাড়া বাকেরগঞ্জ উপজেলায় মোট ২ লক্ষ ১৩ হাজার ৯শত ৬৮জন ভোটার এর মধ্যে পুরুষ ১লক্ষ ৫ হাজার ৮শত ২০জন মহিলা ১ লক্ষ ৮হাজার ১শত ৪৮জন মোট। এ উপজেলায় ৯৪টি সেন্টারে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। দুই উপজেলা নির্বাচনের বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার এহসান উল্লাহ জানন আমি বেশ কয়েকটি ভোট কেন্দ্র ঘুরে দেখেছি কোথাও কোন অপ্রিতিকর ঘটনা বা জাল ভোটের খবর এখন আমি পাইনি বা আমার চোখে পড়েনি। তবে সড়িকলে জাল ভোট দেয়ার সময় তাদের ধরতে নাপারায় দুজন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করেনেয়া হয়েছে।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

সেপ্টেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০