September 21, 2017

বরিশালের সর্ববৃহৎ আয়োজন মাহিলাড়ার একুশে বই মেলা

--- ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪

barisal-book

খোকন আহম্মেদ হীরা ॥  মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস নতুন প্রজন্মের মাঝে তুলে ধরতে এখানে নির্মাণ করা হয়েছে প্রতীকী বদ্ধভূমি। ভাষা ও মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের পাশাপাশি যাদের জন্য ধন্য এ দেশ তাদের প্রতিকৃতি দিয়ে সাজানো হচ্ছে আলোকচিত্র প্রদর্শন। একই সাথে রয়েছে চার দিনব্যাপী বৃহৎ আয়োজনের একুশে বই মেলা। যেখানে প্রতিদিন হাজার-হাজার বই প্রেমিদের সমাগম ঘটবে। প্রতিদিনই দেশের নামিদামী লেখক ও সাহিত্যিকদের নতুন নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হবে। এছাড়াও প্রতিদিন দেশবরেণ্য শিল্পীদের সমন্ময়ে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মুক্তিযুদ্ধের নাটক মঞ্চস্থ করা হবে। একুশে বই মেলা উপলক্ষে দেয়াল পত্রিকা ও স্মরনিকা প্রকাশও করা হয়েছে।

দ্বিতীয় বছরের ন্যায় এবারও বরিশালের উত্তর জনপদে স্মরণাতীতকালের এ সর্ববৃহৎ আয়োজনের গৌরনদী উপজেলার ঐতিহ্যবাহী মাহিলাড়া ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গণে এখন চলছে শেষ সময়ের প্রস্তুতি। আগামীকাল ২১ ফেব্র“য়ারি সকাল দশটায় বৃহৎ পরিসরের এ মেলাটি উদ্বোধন করা হবে। মেলা চলবে আগামী ২৪ ফেব্র“য়ারি পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, চার দিনব্যাপী একুশে বই মেলা উপলক্ষে মাহিলাড়া ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গন ও তার পাশ্ববর্তী এলাকাকে সাজানো হয়েছে বর্ণিল অপরূপ সাজে।

মাহিলাড়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ফিরোজ ফোরকান আহম্মেদ জানান, দ্বিতীয়বারের ন্যায় কলেজ প্রাঙ্গণের একুশে বই মেলা উপলক্ষে চেতনায় একুশ নামের দেয়াল পত্রিকা ও হৃদয়ে একুশ নামের স্মরনিকা প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৪ উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক ও মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলুর আপ্রান চেষ্টা এবং আর্থিক সহযোগীতায় মনোরম পরিবেশের এ বই মেলাটির আয়োজন করা হয়েছে।

একুশ উদ্যাপন কমিটির উদ্যোগে একুশের প্রথম প্রহরে কলেজ প্রাঙ্গণে অবস্থিত মাহিলাড়া ইউনিয়নের সুরম্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে পুস্পঅর্পন করে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্রশ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। প্রভাত ফেরির পূর্বে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গৌরনদীর মাহিলাড়া এলাকায় বিশাল এক বণার্ঢ্য র‌্যালীর আয়োজন করা হয়েছে।

এছাড়াও প্রতিদিন বিকেল চারটা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত দেশবরেণ্য ব্যক্তিদের নিয়ে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নাট্যানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। চারদিনের বইমেলায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দেশ বরেণ্য ব্যক্তিরা, বিশিষ্ট সমাজ সেবক, রাজনীতিবিদ, লেখক, সাহিত্যিক ও গুনীজনেরা।

নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন
মেলার উদ্বোধনী দিনেই দেশবরেণ্য কবি ও সাহিত্যিক শিকদার রেজাউল করিম রচিত ‘বৃহতী গৌরনদীর ইতিহাস’ নামের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হবে। দ্বিতীয় দিনে অধ্যক্ষ ফিরোজ ফোরকান আহমেদের লেখা “বায়ান্নের একুশ”। তৃতীয় দিনে জিনাত জাহান খানের কবিতা সমূহ সহ বিভিন্ন লেখকের বইয়ের মোড়ক উন্মোচিত হবে।

একুশ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের গৌরনদী উপজেলা শাখার আহবায়ক ও মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু জানান, দলবাজি, ব্যক্তিস্বার্থ রক্ষা কিংবা আত্মাভিমান ভুলে ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ভ হয়ে সকল যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্যকরের দাবিতে আজ বর্জ কন্ঠে শ্লোগান তোলার সময় এসেছে। তাই দলমতের র্উদ্ধে থেকে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে মাহিলাড়া ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গণের শহীদ মিনারের বেদীতে পুস্পাঅর্পন ও একুশে বই মেলায় সকল দলের অংশগ্রহনের জন্য সকলের প্রতি আহবান করেন।

মাহিলাড়া ডিগ্রি কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি ও অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার বলেন, ব্যতিক্রমধর্মী ও বৃহৎ পরিসরের এ বই মেলার ধারা প্রতিবছরই অব্যাহত রাখতে তিনি সর্বাত্মক সহযোগীতা করবেন।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

সেপ্টেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০