July 22, 2017

বরিশাল বিভাগের ৫ উপজেলায় নির্বাচন নিয়ে টানটান উত্তেজনা

--- ১৪ মার্চ, ২০১৪

upzilla-election_barisal

আজ রাত পোহালেই কাল শনিবার বরিশালের ৫ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনকে ঘিরেই প্রতিটি উপজেলায় এখন টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রতিটি উপজেলাই রয়েছে একাধিক ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র।

নির্বাচনের দিন সংঘাত সংঘর্ষ এড়াতে প্রতিটি উপজেলায় মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ, আনসার, বিডিবি ও সেনাবাহিনী।

প্রশাসনের দাবী, অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন করতে তারা সকল প্রস্তুতি নিয়েছেন তারা।

সূত্র জানায়, আগামীকাল ১৫ই মার্চ শনিবার বরিশাল বিভাগের ৫ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উপজেলা গুলো হল, বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ, হিজলা, মুলাদী, ভোলা জেলার ভোলা সদর ও পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ স্বরূপকাঠী উপজেলা।

এসব উপজেলায় আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জামায়াত, ওয়ার্কস্ পার্টিসহ বিভিন্ন দলের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্ডিতা করছেন। প্রার্থীরা ইতিমধ্যেই নির্বাচনের বিধি অনুযায়ী তাদের প্রচার প্রচারণা শেষ করেছেন।

বরিশালের জেলা পুলিশ সুপার এ.কে.এম এহসান উল¬াহ জানিয়েছেন, বাবুগঞ্জ, হিজলা, ও মুলাদী উপজেলা নির্বাচনে ৬৯৫ জন পুলিশ, ১২৩০ জন আনসার ও তাদের পাশাপাশি র‌্যাব ও বিডিবি, সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে। এর পাশাপাশি থাকবে ১ জন ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল টিম।

বাবুগঞ্জ উপজেলা ঃ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রতিদ্বন্ডিতা করছেন। এরা হল, বিএনপি সমর্থিত মোঃ কামরুল আহসান খান (দোয়াতকলম), ওয়ার্কস্ পার্টির মোঃ বজলুর রহমান মাষ্টার (টেলিফোন), আওয়ামীলীগের সরদার মোঃ খালিদ হোসেন ও বিএনপির বিদ্রোহী সুলতান আহম্মেদ খান। এখানে প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছে গ্র“পিং। ইতিমধ্যে একাধিকবার হয়েছে সংঘাত সংঘর্ষ। বাবুগঞ্জ উপজেলার মোট ভোটার সংখ্যা ৯৪ হাজার ৯৭। ৩৫টি কেন্দ্রের মাধ্যমে এখানে ভোট গ্রহণ করা হবে, এর মধ্যে ১৩টি কেন্দ্র অধীক ঝুঁকিপূর্ণ।

মুলাদী উপজেলা ঃ মুলাদীতে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ডিতা করছেন ৫ জন। এরা হলেন, বিএনপির আব্দুস ছত্তার খান (কাপপিরিচ), সতন্ত্র আব্দুল মজিদ (ঘোড়া), আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী মোঃ আব্দুল মালেক মিয়া (মটরসাইকেল), আওয়ামীলীগের সমর্থিত তারিকুল হাসান খান মিঠু (আনারস) ও বেলাল হোসেন (দোয়াতকলম)। উপজেলার মোট ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ২৩ হাজার ২৩৭। এখানে মোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৫২টি, এর মধ্যে ৩৪টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

হিজলা উপজেলাঃ হিজলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ডিতা করছেন ৯ জন এরা হলেন, বিএনপির দেওয়ান মোহাম্মদ শহিদুল¬াহ (চিংড়ি), আওয়ামীলীগের সুলতান মোঃ টিপু সিকদার (হেলিক্যাপ্টার), বিএনপির বিদ্রোহী আঃ গফ্ফার তালুদার (ঘোড়া), আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী মোঃ দলিলুর রহমান সিকদার (কাপপিরিচ), মোঃ বেলায়েত হোসেন ঢালী (টেলিফোন), এছাড়াও রয়েছে আবুল হাসেম মোঃ বশিরউল¬াহ (ব্যাটারী), আঃ কুদ্দুস বেপারী (দোয়াতকলম), এ.কে.এম আঃ কাইয়ুম খান (আনারস) ও সৈয়দ মোজাম্মেল হক (মটরসাইকেল)। এই উপজেলার মোট ভোটার সংখ্যা ৮৬ হাজার ৮শত ৭১। মোট কেন্দ্র রয়েছে ৩০টি এর মধ্যে ৯টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

ভোলা সদর উপজেলাঃ ভোলা সদরে আগামীকাল ১৫ই মার্চ উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এখানে ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্ডিতা করছেন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশারেফ হোসেন (দোয়াতকলম), বিএনপির ফারুখ মিয়া (আনারস)। এই উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৬৫ হাজার ৬শত ৫১। এখানে মোট ৮৩টি কেন্দ্র রয়েছে এর মধ্যে ৪৯টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এখানে নির্বাচন সম্পন্ন করতে পুলিশ র‌্যাব, বিডিবির পাশাপাশি ১৭টি মোবাইল টিম দায়িত্ব পালন করিবে।

নেছারাবাদ উপজেলা ঃ পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ স্বরূপকাঠী উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্ডিতা করছেন ৪ জন। এরা হলেন, বিএনপির ওহিদুজ্জামান অহিদ (মটরসাইকেল), আওয়ামীলীগের আব্দুল হক (দোয়াতকলম), এছাড়া অন্য দলের অন্যান্য ২ জন।  এই উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৩ হাজার ৪শত ১৯। এখানে মোট ৬৪টি কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে ২৬টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

জুলাই ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১