September 21, 2017

হিরনের সংক্ষিপ্ত জীবনী

--- ৯ এপ্রিল, ২০১৪

mp-hiron

বরিশাল টুডে ॥ ১৯৫৬ সালের ১৫ অক্টোবর পটুয়াখালীর বাউফল এলাকার মৃত আবুল হাশেম মিয়া ও মৃত জয়নব বেগমের সংসারে জন্মগ্রহণ করেন শওকত হোসেন হিরণ। ১৯৭৩ সালে সক্রিয় রাজনীতিতে হাতেখড়ি হয় বরিশাল ল’কলেজ থেকে ‘এলএলবি’ পাশ করা হিরণের। ওই বছর তিনি জাসদ ছাত্রলীগের যোগদান করেন। ১৯৭৯ সালে জাসদ ছাত্রলীগ ছেড়ে বিএনপি’র ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত হন। ১৯৮৬ সালে তিনি যুক্ত হন এরশাদের জাতীয় পার্টির সাথে। সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে তিনি আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে সাথে শুভেচ্ছা সাক্ষাত করে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন। তিনি এরশাদ সরকারের আমলে বরিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। তবে পরে দুইবার জাতীয় পার্টি প্রার্থী হিসেবে বরিশাল-৫ (সদর) আসন থেকে নির্বাচনে অংশ নিয়েও পরাজিত হন।

২০০৮ সালের বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তিনি আওয়ামীলীগের সমর্থন নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন। তবে ২০১৩ সালের ১৫ জুন বিসিসি’র নির্বাচনে তিনি বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আহসান হাবিব কামালের কাছে পরাজিত হন। পরে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে তিনি বরিশাল সদর আসন থেকে বিনা প্রতিদ্ব্দ্বীতায় সাংসদ নির্বাচিত হন। পেশায় ঠিকাদার ও ব্যবসায়ী শওকত হোসেন হিরণ সাউথ এ্যাপোলো মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল লিমিটেড, বেলস লিমিটেড, বেলস ফার্মা ইউনানি প্রাইভেট লিমিটেড, অ্যাভান্স এসোসিয়েট প্রাইভেট লিমিটেডের চেয়ারম্যান, এইচ.পি.এল ও এইচ.পি.এল শিপিং এবং সাউথ বেঙ্গল পরিবহনের সত্ত্বাধিকারী, সাউথ এ্যাপোলো ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স প্রাইভেট লিমিটেড ও বেলভিউ মেডিক্যাল সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালকসহ অন্তত ১১ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত ছিলেন।

শওকত হোসেনের এক ছেলে ও এক মেয়ে। সম্প্রতি মেয়ের বিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। হিরণের স্ত্রী জীবুন্নেছা আফরোজ একজন সমাজ সেবক। নগরীর দক্ষিন আলেকান্দার খালেদাবাদ কলোনী এলাকার ডেঙ্গু সরদার রোডের ওহাব বাড়ির ‘হিরন পয়েন্ট’ নামের বাসায় তিনি পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন।

ফেইসবুকে আমরা

পুরনো সংখ্যা

সেপ্টেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০